( )

হোয়াটস অ্যাপ এর যে কারো ম্যাসেজ পিডিএফ করুন সবচেয়ে সহজ উপায়ে।



পিডিএফ এ রুপান্তর এর মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন আপনাদের চ্যাটিং যদি প্রিন্ট করা হয় তবে তা কত পৃষ্ঠার বই হবে। মজার বিষয়, তাই না?…..
চলুন শুরু করা যাক।…..
প্রথমে আপনি নিচের লিংক থেকে WPS Office + PDFএপটি ডাউনলোড করে নিন…..
Download Now
ধাপ সমুহঃ
প্রথমে কাঙ্খিত ব্যক্তির চ্যাট ওপেন করুন। উপরে ডান পাশে তিনটা ডট চিহ্নিত অপশন বাটনে ক্লিক করুন। তারপর more এ ক্লিক করুন।

email chat এ ক্লিক করুন। মিডিয়া ছাড়া চাইলে without media তে ক্লিক করুন। মিডিয়া সহ হলে প্রসেসিং টাইম বেশি লাগবে।

আপনার ইমেইল এপ choose করুন। এবং যেকোনো একটা ইমেইল এ মেইল টি পাঠিয়ে দিন। এক্ষেত্রে আমি আমার অন্য একটি ইমেইল এ মেইল টি পাঠিয়েছি। আমাদের শুধুমাত্র এটাচমেন্ট এর ফাইল টি দরকার।এখন ইমেইল এপ টি ওপেন করে যে মেইল টি সেন্ড করেছেন বা ড্রাফট এ জমা রেখেছেন সেটি খুঁজে বের করুন এবং এটাচমেন্ট এর ফাইল টি ডাউনলোড করুন। একটি টেক্সট ফরমেট এর ফাইল পাবেন।
এখন ইমেইল এপ টি ওপেন করে যে মেইল টি সেন্ড করেছেন বা ড্রাফট এ জমা রেখেছেন সেটি খুঁজে বের করুন এবং এটাচমেন্ট এর ফাইল টি ডাউনলোড করুন। একটি টেক্সট ফরমেট এর ফাইল পাবেন।
এরপর ওই টেক্সট ফাইল টি WPS Office দিয়ে ওপেন করুন। তারপর tools এ ক্লিক করুন। export to pdf এ ক্লিক করুন।
Penulis :

Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?

কোন প্রকার সন্দেহ ছাড়া এক বাক্যে বলা যায় Google Keyword Planner হচ্ছে বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট মার্কেটের সবচাইতে জনপ্রিয় কীওয়ার্ড রিসার্চ টুলস। এই টুলটি ব্যবহার করে এক জন ওয়েবমাষ্টার খুব সহজে অত্যন্ত নিখুতভাবে যে কোন কীওয়ার্ড সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা নিতে পারেন। এতে করে যে কোন ব্লগার বা অন-লাইন মার্কেটার সহজে বুঝতে পারেন, তার ব্লগে বা ওয়েবসাইটে কিংবা তার ব্যবসার যে পন্য রয়েছে সেগুলি কি ধরনের কীওয়ার্ড ব্যবহার করে সার্চ ইঞ্জিনে সবাই সার্চ করছে। সে প্রেক্ষিতে একজন ব্লগার বা অন-লাইন মার্কেটার সহজে কীওয়ার্ড নির্বাচন করে তার ব্লগের আর্টিকেল সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে সবার কাছে পৌছে দিয়ে তার ব্লগের বা ব্যবসার সাফল্য বয়ে নিয়ে আসতে সক্ষম হন। আমাদের আজকের টিউটরিয়াল এর মূল বিষয় হচ্ছে Google Keyword Planner ব্যবহার করে কিভাবে উপযুক্ত Keywords নির্বাচন করা যায়?
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?

Keyword Research কি?

ধরুন আপনি এই মাত্র অন-লাইনে একটি পার্সনাল ব্লগ কিংবা ব্যবসায়িক ব্লগ চালু করেছেন। এ ক্ষেত্রে আপনার ব্লগের প্রচার ও প্রসারের মাধ্যমে সবার কাছে জনপ্রিয় করার জন্য প্রয়োজন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও)। কেবলমাত্র সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে কোন প্রকার অর্থ ব্যয় না করেই খুব সহজে আপনার ব্লগটিকে সবার কাছে পৌছে দেয়ার মাধ্যমে ট্রাফিক বৃদ্ধি করে ব্লগের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর পাশাপাশি ব্লগের সফলতা বয়ে নিয়ে আসতে পারেন। মোট কথা হচ্ছে ব্লগে ট্রাফিক বৃদ্ধি, ব্লগের প্রচার-প্রসার, ব্লগের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি এবং সফলতা অর্জনের জন্য প্রয়োজন সঠিকভাবে এসইও করা। অন্যদিকে ব্লগিং শুরু করার পর এসইও এর সর্বপ্রথম যে ধাপটি আসে সেটি হচ্ছে Keyword Research করা। কারণ Keyword Research এর মাধ্যমে আপনার ব্লগের বিষয়বস্তুর গুরুত্বপূর্ণ কীওয়ার্ড সম্পর্কে জানতে পারবেন। তাহলে সংক্ষেপে এ ভাবে বলা যায় যে, কোন ব্লগের গুরুত্বপূর্ণ কীওয়ার্ডগুলি খুজে বের করার জন্য যে কাজটি করা হয় সেটিই হচ্ছে Keyword Research.

SEO এর ক্ষেত্রে Keyword Research এর গুরুত্ব কতটুকু?

অন-লাইনে যা কিছু খুজা হয় তার প্রায় সবটাই করার হয় Keyword ব্যবহার করে। বিশেষ করে বর্তমান সময়ে Google Search Engine এর স্বচ্ছতার কারনে সবাই এখন কোন ওয়েবসাইটের এড্রেস মনে না রেখে, তার প্রয়োজনীয় বিষয় খুজার জন্য সরাসরি Search Engine এ সার্চ করছে। সে ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে Google সার্চ ইঞ্জিন তাকে সবচাইতে ভাল টপিকটি তার সামনে এনে হাজির করছে। সার্চ ইঞ্জিনের বিশ্বস্ততার কারনে অন-লাইনে কোন কিছু খুজার ক্ষেত্রে সবাই এখন Keywords নির্ভর হয়ে পড়েছে। কাজেই সবার চাহিদার কথা বিবেচনা করে এ পদ্ধতীতে আপনার ব্লগটি সবার কাছে পৌছে দেয়ার জন্য আপনার ব্লগের বিষয়বস্তুর গুরুত্বপূর্ণ কীওয়ার্ডগুলি জেনে নিতে হবে অর্থাৎ কি ধরনের কীওয়ার্ড ব্যবহার করে আপনার ব্লগের বিষয়গুলি অন-লাইনে সার্চ হতে পারে। এ বিষয়টি যে যত সুক্ষভাবে করতে পারবে সে তার ব্লগে তত বেশী ট্রাফিক বৃদ্ধি করতে পারবে।

Google Keyword Planner কি?

Google Adwords Keyword Planner হচ্ছে Adwords Publishers দের জন্য গুগল এর একটি অফিসিয়াল টুলস। মূলত গুগলের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দাতাদেরকে বিজ্ঞাপন দেয়ার পূর্বে তাদের ওয়েবসাইটের কীওয়ার্ডস সম্পর্কে ধারনা দেয়ার জন্য এ টুলসটি চালু করে, কিন্তু এটিতে Keyword Research অপশন উন্মুক্ত থাকার কারনে Adwords Publishers এবং Webmaster উভয়ই এটি ব্যবহার করতে পারেন। যে কোন ধরনের কীওয়ার্ড সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা নেওয়ার জন্য এটি অত্যন্ত কার্যকরী একটি ফ্রি টুলস।

Keyword Planner Interface and Keyword Tools পরিচিতি:

  • প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করে আপনার Gmail ID এবং Password দিয়ে লগইন করুন।
  • লগইন করার পর নিচের চিত্রেরন্যায় অপশন দেখতে পাবেন।
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?
  • উপরের চিত্রে Google Keyword Planner এর চার টি অপশন রয়েছে। আমরা কেবলমাত্র উপরের তীর চিহ্নিত অপশনটি ব্যবহার করব। একজন ব্লগার বা ফ্রি ল্যান্সার এর ক্ষেত্রে উপরের অপশনটি সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলেই সঠিক Keywords পেয়ে যাবেন।
  • এখন উপরের তীর চিহ্নিত অপশনটিতে ক্লিক করলে নিচের চিত্রটি দেখতে পাবেন।
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন? 
কীওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে আলোচনা করার পূর্বে উপরের সবগুলি অপশন এক পলকে ভালভাবে জেনে নেই। কারণ কীওয়ার্ড রিসার্চ এর ক্ষেত্রে এই অপশনগুলি হচ্ছে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ। এই অপশনগুলি ব্যবহার আপনি আপনার যে কোন কীওয়ার্ড এর যাবতীয় বিষয় জানতে পারবেন।
  1. Your Product or Service: এই অপশনের খালি ঘরটিতে আপনি যে কীওয়ার্ড রিসার্চ করতে চান সে কীয়ার্ডটি লিখে দিতে হবে। কীওয়ার্ড লিখার ক্ষেত্রে একসাথে এক বা একাধিক কীওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।
  2. Your Landing Page: আপনি যদি কোন ওয়েবসাইট এর নির্দিষ্ট কোন একটি পেজের কীওয়ার্ড সম্পর্কে ধারনা নিতে চান, তাহলে এই ঘরটিতে কাঙ্খিত লিংক ব্যবহার করে কীওয়ার্ড সম্পর্কে ধারনা নিতে পারবেন।
  3. Your Product Category: আপনি যে কীওয়ার্ড নিয়ে রিসার্চ করবেন, সেই কীওয়ার্ডটি কোন ধরনের Category এর মধ্যে পড়ে সেটিও সিলেক্ট করে কীওয়ার্ড সম্পর্কে ধারনা নিতে পারবেন।
  4. Targeting: এই অপশনটি সম্পর্কে তেমন কিছু বলার নেই। আপনি যদি নির্দিষ্ট কোন এলাকা বেধে কীওয়ার্ড রিসার্চ করতে চান, তাহলে Location পরিবর্তন করে দিতে পারেন। আপনার কীওয়ার্ডটি যদি ইংরেজী ব্যতীত অন্য কোন ভাষার হয়, তাহলে সেটিও পরিবর্তন করে দিতে পারবেন। Negative Keywords অপশনটি তখনই ব্যবহার করবেন, যখন আপনি কোন Keyword নিতে ইচ্ছুক থাকবেন না। ফলে আপনার নির্দিষ্ট কীওয়ার্ড ব্যতীত অন্য কীওয়ার্ড সম্পর্কে সাজেস্ট করবে। এ ছাড়াও অন্য অপশনগুলির তেমন কোন প্রয়োজন হয় না।
  5. Date Range: কিছু কিছু বিষয় থাকে যেগুলি Session বেধে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে। যেমন- Cricket World Cup খেলার সময় Cricket বিষয়ে প্রচুর পরিমানে অন-লাইনে খুজা হয়ে থাকে। সেই ক্ষেত্রে এই ধরনের কীওয়ার্ড সম্পর্কে জানার জন্য এই অপশনটি ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়াও কোন নির্দিষ্ট সময়ে কোন বিষয়ে কি পরিমান সার্চ হচ্ছে সেটিও জেনে নিতে পারবেন।
  6. Keyword Filters: আপনি যদি 100 টিরও বেশি মাসিক ইমপ্রেশন সঙ্গে কিওয়ার্ড ফিল্টার করতে চান, তাহলে আপনি এখানে এটা করতে পারেন। ফিল্টার করার মাধ্যমে কম কম্পিটিশনের কীওয়ার্ডগুলি সহজে খুজে বের করতে পারবেন।
  7. Keyword Options: এই ফিল্টার ব্যবহার করে আপনি বিস্তৃত ম্যাচ কিওয়ার্ড পেতে পারেন।
  8. Keywords to Include: এই অপশনটি Negative Keywords এর সম্পূর্ণ বিপরীত। Negative Keywords আপনার কাঙ্খিত কীওয়ার্ড বাদ দিয়ে শো করবে। পক্ষান্তরে Keywords to Include আপনার কাঙ্খিত কীওয়ার্ড সম্বলিত কীওয়ার্ড সম্পর্কে সাজেস্ট করবে।

কিভাবে Keywords রিসার্চ করবেন?

  • প্রথমে আপনার Gmail ID এবং Password দিয়ে Google AdWord Tool এ লগইন করুন।
  • লগইন করার পর নিচের চিত্রেরন্যায় অপশন দেখতে পাবেন।
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?
  • এখন উপরের তীর চিহ্নিত অপশনটিতে ক্লিক করলে নিচের চিত্রটি দেখতে পাবেন।
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?
  • আপনি যে কীওয়ার্ডটি সম্পর্কে জানতে চান সেটি উপরের তীর চিহ্নিত ঘরে লিখে দেন। উদাহরন স্বরুপ আমি এখানে SEO Consultant কীওয়ার্ড দুটি ব্যবহার করেছি।
  • তারপর উপরের চিত্রের নিচের দিক হতে নীল কালারের Get idea বাটনে ক্লিক করলেই মুহুর্তে আপনার কাঙ্খিত কীওয়ার্ড সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য পেয়ে যাবেন। নিচের চিত্রে দেখুন-
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?
  • উপরের চিত্রে দেখুন বড় করে লিখা রয়েছে যে, এ কীওয়ার্ডটি দিয়ে মাসিক গড় অনুপাতে ১ মিলিয়ন থেকে ১০ মিলিয়ন পর্যন্ত সার্চ করা হয়েছে। এ কীওয়ার্ডটির Competition Medium এবং Adword এর ক্ষেত্রে প্রতি ক্লিকে $12.16 ডলার খরছ করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। এ ছাড়াও চিত্রের নিচের দিকে কীওয়ার্ডটির সাথে Related আরও কিছু কীওয়ার্ড প্রদর্শন করছে। এতেকরে আপনার কাঙ্খিত কীওয়ার্ড এর পাশাপাশি অন্য কীওয়ার্ড সম্পর্কেও ধারনা নিতে পারবেন। নিচের নিত্রে আরও বিস্তারিত দেখুন-
Google Keyword Planner দিয়ে কিভাবে Keyword Research করবেন?
  • উপরের চিত্রে দেখুন আপনার কীওয়ার্ড Related আরও ৬৫৮ টি কীওয়ার্ড সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য দেখাচ্ছে। এখান থেকে আপনার কীওয়ার্ড সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা নিতে সক্ষম হবেন।
শুধুমাত্র এ কাজটি সঠিকভাবে করতে পারলে একজন ব্লগার তার ব্লগের উপযুক্ত কীওয়ার্ড সঠিকভাবে সিলেক্ট করতে পারবেন। এই কাজটি সঠিকভাবে করতে পারলে আমার মনেহয় বাকী কাজগুলি যে কেউ নিজে নিজে করতে পারবে। তারপরও বাকী বিষয়গুলি নিয়ে আমরা ভবিষ্যতে বিস্তারিত আলোচনা করব, ইনশাআল্লাহ্।

কিভাবে ব্লগে উপযুক্ত Keywords ব্যবহার করবেন?

আমার বিশ্বাস উপরের বিষয়গুলি সঠিকভাবে বুঝতে পারলে আপনি নিজেই খুব সহজে আপনার ব্লগের জন্য এবং যে কোন ব্লগ পোষ্টের জন্য উপযুক্ত কীওয়ার্ড সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা পেয়ে যাবেন। নিচে আমরা আরও কিছু টিপস শেয়ার করব যেগুলি আপনাকে কীওয়ার্ড ব্যবহারের ক্ষেত্রে অধিক যত্নশীল করবে।
  • Long Tail Keywords ব্যবহারঃ আপনার ব্লগটি যদি নতুন হয় এবং ব্লগের র‌্যাংকিং কম হয়ে থাকে, সে ক্ষেত্রে আপনি অবশ্যই ছোট কীওয়ার্ড এর পরবর্তী বড় কীওয়ার্ড ব্যবহার করবেন। কারণ নুতন ব্লগের পক্ষে ছোট কীওয়ার্ড দিয়ে সার্চ ইঞ্জিন হতে ট্রাফিক পাওয়া খুব দুরূহ ব্যাপার। সে ক্ষেত্রে আপনি বড় এবং Low Competition এর কীওয়ার্ডগুলি ব্যবহার করতে পারেন। তাছাড়া অধিকাংশ ওয়েবমাষ্টারদের মতে বড় কীওয়ার্ড ব্যবহার করে সহজে সার্চ ইঞ্জিন হতে ট্রাফিক পাওয়া সম্ভব হয়। আপনার ব্লগ যখন পুরাতন হয়ে যাবে এবং র‌্যাংকিং বাড়তে থাকবে, তখন ছোট এবং High Competition এর কীওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।
  • জনপ্রিয় কীওয়ার্ড ব্যবহারঃ যে বিষয় নিয়ে ভিজিটরদের প্রচুর পরিমানে আগ্রহ রয়েছে, সম্ভব হলেও সে ধরনের কীওয়ার্ড ব্যবহার করুন। কারণ আপনি যদি এমন কোন টপিক নিয়ে লিখেন যে বিষয়ে ইন্টারনেটে খুব কম সার্চ করা হয়, তাহলে সে কীওয়ার্ড নিয়ে কাজ করে কোন সফলতা অর্জন করতে পারবেন না। জনপ্রিয় কীওয়ার্ডগুলি High Competitive হলে সেগুলির সাথে আরও কিছু কীওয়ার্ড যোগ করে ব্যবহার করতে পারেন।
  • Google Search Console Keyword Data: এটি অত্যন্ত কার্যকরী একটি অংশ। আপনার Google Webmaster Tools এর Search Queries Section এ গেলে আপনি পরিষ্কারভাবে দেখতে পাবেন যে, আপনার ব্লগে কী ধরনের কীওয়ার্ড ব্যবহার করে সার্চ ইঞ্জিন হতে ট্রাফিক পাচ্ছেন। আপনি সেখান থেকে গুরুত্বপূর্ণ কীওয়ার্ড বাছাই করে ব্যবহার করলে ভাল ফলাফল পেতে পারেন।
  • Keyword Density: কীওয়ার্ড ডেনসিটি হল কত বার একটি ওয়ার্ড আপনার ব্লগের কোন একটি পোষ্টে আছে। ধরুন আপনার একটি ওয়েবসাইটের কোন পেইজে ১০০ শব্দ আছে, আর সেই ১০০ শব্দের মধ্যে ৫ বার কীওয়ার্ড ব্যবহার করলেন। তাহলে বলা যাবে 5 টাইমস কীওয়ার্ড ব্যবহার হয়েছে এবং সেখানে কীওয়ার্ড ডেনসিটি হল ৫%। আমি মনে করি একটি ওয়েবসাইটের কীওয়ার্ড ডেনসিটি সাধারণত ৫-৭% এর মধ্যে থাকা উচিত। আপনার ব্লগ পোষ্টের প্রথম এবং শেষ অংশসহ পোষ্টের Image ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলিতে কীওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারেন।
সাহায্য জিজ্ঞাসাঃ Google Keyword Planner ব্যবহার করে Keyword Research সহ কিভাবে একটি ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইটে কীওয়ার্ড ব্যবহার করতে হয় সে বিষয়ে সুস্পষ্ট ধারনা দেয়ার চেষ্টা করেছি। আশাকরি উপরের সবগুলি ধাপ মনযোগ সহকারে পড়লে যে কেউ বিষয়টি পরিষ্কারভাবে বুঝে তার ব্লগের উপযুক্ত কীওয়ার্ড নির্বাচন করতে পারবেন। তারপরও যদি কারও কোন অংশ বুঝতে সমস্যা হয় বা কোন প্রকার সংকোচ থাকে, তাহলে আমাদেরকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। আমরা প্রতিউত্তরের মাধ্যমে Keyword Research সম্পর্কে আপনার খটকা দূর করার চেষ্টা করব।
Penulis :

Adsdream ব্যবহার করুন আয় করুন আগের চেয়ে দিগুন ,সফলতা এইবার আসবেই 100%


আসসালামু আলাইকুম,প্রিয় পাঠকরা কেমন আছেন আপনারা? আশা করি ভালই আছেন । যাইহোক কথা না বাড়িয়ে কাজের কথায় আসি । আমাদের দেশে শতকরা ৮০ ভাগ লোকের এডসেন্স নেই । এডসেন্স পেতে হাজার ও জামেলা সহজে এপ্রুবড হয় না । হলে ও ২ দিন লাগে না ব্যান খেতে । তাই আপনাদের জন্য এক অসাধারণ এড নেওয়ার্ক নিয়ে আসলাম । এটি বাংলাদেশি একটি কোম্পানি । ভয় পাইয়েন না সব বাংলাদেশি লোক বা কোম্পানি একরকম হয়না । এটি ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে । আলমগির ভাই এই এড নেটওয়ার্কের ফাউন্ডার ,আপনি চাইলে তার সাথে কথা বলে কনফার্ম হতে পারেন । আর কথা বলার প্রয়োজন নাই তারা টাকা না দিলে আমি আপনাকে দিবো ।

Adsdream Introduce :
আমরা এতক্ষন ধরে যে এডনেটওয়ার্ক কথা বলছি তা হচ্ছে
এডসড্রিম । এটি CPM ও CPC ভিত্তিক এডনে্টওয়ার্ক । যারা জানে না তাদের জন্য বলছি CPM হচ্ছে Cost per Mile বা Cost per Thousand Impression । আপনার এডটি কেউ একবার দেখলে ১টি ইম্প্রেসন পাবেন ।২৪ ঘন্টার মধ্যে ওই ইউজার অনেকবার ঢুকলে ও ওই একটি ইম্প্রেসনি গণ্য হবে । অপরদিকে CPC হচ্ছে Cost Per Click । এটাতো বুঝতেই পারছেন ক্লিক এর উপর টাকা । যত ক্লিক বেশি হবে তত আয় ও বেশি হবে । Adsdream এর CPM রেট অনেক বেশি । CPM রেট টা অনেক কিছুর উপর নির্ভর করে Country+browser+device+page junk etc . তাদের CPM রেট হচ্ছে 0.25$-10$ পর্যন্ত । ধরা যাক ,আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইটে প্রতিদিন ১ হাজার ইউনিক ভিজিটর আসে । আপনার CPM রেটটা ধরলাম 5 $ । তাহলে ৩০ দিনে ৩০ হাজার ভিজিটর ,মানে ১৫০ $ । ক্লিকের কথা বাদই দিলাম Cpm থেকেই এত আয়!!!!!! তাদের আরেকটা বিশেষ ফিচার আছে তা হচ্ছে তারা সাইট অটো এপ্রভড করে
Payment methods:
এরা প্রতি মাসের ৫ তারিখ ও ২০ তারিখে পেমেন্ট দিয়ে থাকে । তাদের পেমেন্ট মেথড এর বৈচিত্র্য রয়েছে । তারা Paypal,Payoneer, Bank transfer, Wire Transfer, Check , Bkash, DBBL. এ পেমেন্ট দিয়ে থাকে । আপনি চাইলে সরাসরি তাদের অফিস থেকে টাকা আনতে পারেন ।
More Income:
আপনি যদি একজন পাবলিশারকে রেফার করতে পারেন তাহলে আপনি আজীবন তার আয়ের ৫ % পাবেন । আর আপনি যদি একজন এডবারটিজারকে রেফার করতে পারেন তাহলে আপনি আজীবন তার ব্যায়ের ২০% পাবেন ।
Adsdream Support:
তারা দিনে ২৪ ঘন্টা,সপ্তাহে ৭ দিনই আপনাকে সাপোর্ট দিবে । তাই সাপোর্ট নিয়ে আপনাকে ভাবতে হবে না ।এড নেটওয়ার্কটি At a glance একটু দেখে নেয়া যাক
Type Service
Commission type CPM,CPC and mobile redirect
Minimum Payout 50$
Payment Frequency Net 15
Payment Method paypal,payoneer,DBBL,Bkash
Country Bangladesh
Minimum Traffic Required 20000 page views/month
Adserving International
sign up with adsdream
আজ এই পর্যন্তই সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন । সবার জন্য শুভ কামনা রইলো । আমাদের পোস্ট গুলো দ্বারা যদি নূন্যতম ও উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে ফেসবুক,টুইটার,গুগল প্লাস এ আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না । কারো কোনো সমস্যা হলে কমেন্ট এ জানান।আমি সমাধান দেওয়ার চেষ্টা করবো ।অনলাইনে আয় বিষয়ক সর্বশেষ আপডেট পেতে আমাদের পেজে লাইকদিন। অথবা ফেসবুকে আমাকে জানাতে পারেন

Penulis :

নিয়ে নিন Moviexpres ব্লগার টেমপ্লেট একদম নুতুন স্টাইলের ডাউনলোড সাইট বানাবেন তো নিয়ে নিন???



বর্তমান Technology এর সবচেয়ে বেশী ব্যবহৃত যত ধরনের ছোট বড় ডিভাইস রয়েছে, তার সবগুলির উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে। সেই জন্য এটি কম্পিউটার, ল্যাপটপ, টেবলেট, স্মার্ট ফোন এবং মোবাইল থেকে সহজে ভিজিট করে কনটেন্ট পড়া যাবে। বিশেষ করে মোবাইল থেকে স্লো গতির ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরাও যাতে সহজে ভিজিট করতে পারে, সে জন্য এটিকে Highly Mobile Optimized করা হয়েছে। তাছাড়া এটির সকল উইজেটগুলি সব ধরনের ডিভাইসের সাথে সামাঞ্জস্য রেখে আলাদা আলাদা ডিজাইন করা হয়েছে


দ্রুত গতি

এই টেমপ্লেটটির বৈশিষ্টের মধ্যে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ গুন হচ্ছে এটি সকল ধরনের ব্রাউজারে খুব দ্রুত লোড নেবে। কারণ এটিতে আমরা HTML5, CSS3, JavaScript সহ সকল ধরনের কোডগুলিকে Minify করে ব্যবহার করা হয়েছে। যার ফলে এটি আপনার ব্লগের লোড টাইমের উপর বাড়তী কোন প্রভাব না ফেলে দ্রুত লোড নেবে

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন

টেমপ্লেটটির সকল অংশ পরিপূর্ণভাবে সার্চ ইঞ্জিনের উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে। এটি ব্যবহার করলে টেমপ্লেটের কোন অংশ এসইও করার কথা ভাবতে হবে না। এক কথায় টেমপ্লেটটির শুরু থেকে শেষ অবধি সকল অংশই সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করা হয়েছে। তবে SEO এর সকল সুবিধা পাওয়ার জন্য এটির Pro ভার্সন ব্যবহার করতে হবে। ফ্রি ভার্সনে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের সকল সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না। নিচে টেমপ্লেটির ফিচার্সগুলি দেখুন-

 

http://moviexpres24.blogspot.com/

 Teampleat password protect not free

price=260tk

call me?01738642227


http://www.mediafire.com/file/snou60c4n5cs0df/Moviexpres2016+created+by+Roman.zip




































































































Penulis :